ধর্মের পুনর্জাগরণে ইমামগণের ভূমিকা

ধর্মের পুনর্জাগরণে ইমামগণের ভূমিকা0%

ধর্মের পুনর্জাগরণে ইমামগণের ভূমিকা লেখক:
প্রকাশক: -
বিভাগ: ইমাম হোসাইন (আ.)

ধর্মের পুনর্জাগরণে ইমামগণের ভূমিকা

লেখক: আল্লামা সাইয়েদ মুরতাজা আসকারী
প্রকাশক: -
বিভাগ:

ভিজিট: 10811
ডাউনলোড: 1199

পাঠকের মতামত:

ধর্মের পুনর্জাগরণে ইমামগণের ভূমিকা
বইয়ের বিভাগ অনুসন্ধান
  • শুরু
  • পূর্বের
  • 16 /
  • পরের
  • শেষ
  •  
  • ডাউনলোড HTML
  • ডাউনলোড Word
  • ডাউনলোড PDF
  • ভিজিট: 10811 / ডাউনলোড: 1199
সাইজ সাইজ সাইজ
ধর্মের পুনর্জাগরণে ইমামগণের ভূমিকা

ধর্মের পুনর্জাগরণে ইমামগণের ভূমিকা

লেখক:
প্রকাশক: -
বাংলা

তথ্যসূত্র :

১। সূরা নূর , আয়াত-১১।

২। ইসলামের হাদীছের ক্ষেত্রে আয়িশার ভূমিকা ’ নামক পুস্তকে এই সম্পর্কে বিশদভাবে বর্ণিত হয়েছে।

৩। সূরা জুমু ’ আহ্ , আয়াত-১১।

৪। দালায়িলুন্ নবুওয়াত , আবু বকর আহমাদ বাইহাক্বী।

৫। সহীহ্ বোখারী , ১ম খণ্ড , পৃ. ৩২-৩৩ , বাবু কিতাবাতিল ইলম এবং ২য় খণ্ড , পৃ. ১২০ , বাবু জাওয়ায়িযিল্ ওয়াফ্দ ইত্যাদি।

৬। তারীখে তাবারী , ২য় খণ্ড , পৃঃ ৬১৯ ; মুরূজুয্ যাহাব , ১ম খণ্ড , পৃ. ৪১৪ ; আলইস্তিআব , ৩য় খণ্ড , পৃ. ৬৯ ; কানযুল উম্মাল , ৩য় খণ্ড , পৃ. ১৩৫ ; আল ইমামাহ্ ওয়াস্ সিয়াসাহ্ , ১ম খণ্ড , পৃ. ১৮ ইত্যাদি।

৭। তারীখে ইয়াকূবী , ২য় খণ্ড , পৃ. ১১৫।

৮। তারীখে তাবারী , ২য় খণ্ড , পৃ. ৪৪৩ , ৪৪৪ ; শরহে নাহ্জুল বালাগাহ্ , ইবনে আবিল হাদীদ , ১ম খণ্ড , পৃ. ১৩০-১৩৪ , আবূ বকর জওহারী বর্ণিত।

৯। তারীখে তাবারী , ২য় খণ্ড , পৃ. ৪৪৩ , ৪৪৪ , ৪৪৬ ইত্যাদি।

১০। শারহে নাহ্জুল বালাগাহ্ , ইবনে আবিল হাদীদ , ১ম খণ্ড , পৃ. ১৩৪ , আবু বকর জওহারীর সকীফা গ্রন্থ হতে বর্ণিত।

১১। রাসূল আকরাম (সা.) এবং আহলে বাইতের (আ.) জন্যে সাদকা ও যাকাতের সম্পদ গ্রহণ অবৈধ । এই জন্যে মহান আল্লাহ্ ফাই ও খুমসকে তাঁদের জন্যে নির্ধারণ করেছেন।

১২। সূরা বনী ইসরাঈল , আয়াত-২৬।

১৩। মাজমা ’ উয্ যাওয়ায়িদ , ৯ম খণ্ড , পৃ. ৩৯ , তাবরানী হতে বর্ণিত।

১৪। সূরা তওবাহ্ , আয়াত- ১২৮।

১৫। সূরা মায়েদা: ৫০

১৬। (সূরা আলে ইমরান :১৪৪)

১৭। সূরা তওবাহ্ , আয়াত-১২।

১৮। শারহে নাহ্জুল বালাগা ,ইবনে আবিল হাদীদ , ৪র্থ খণ্ড , পৃ.৭৮ ,৭৯ ও ৯৩ এবং বালাগাতুন্নিসা , পৃ. ১২-১৫ ; সূরা শু ’ আরা , আয়াত-২২৭।

১৯। (সুরা নামল-১৬)

২০। সূরা মারইয়াম , আয়াত ৫-৬।

২১। সূরা নিসা ’ , আয়াত-১১।

২২। সূরা বাক্বারা , আয়াত-১৮০।

২৩। বালাগাতুন্নিসা , পৃ. ১৬-১৭ এবং সূরা মায়িদা , আয়াত-৫০।

২৪। ওয়াসায়িলুশ্ শী ’ য়াহ্ , ১৮তম খণ্ড , পৃ. ৭৯ মাহাসিন হতে বর্ণিত।

২৫। সাফীনাতুল বিহার , মাদ্দে মুল্ক , ২য় খণ্ড , পৃ. ৫৫১।

২৬। সূরা আনফাল , আয়াত-৭৫।

২৭। শরহে নাহ্জুল বালাগাহ্ , ইবনে আবিল হাদীদ , ১ম খণ্ড , পৃ. ৫৫।

২৮। নাহ্জুল বালাগাহ্ , ৩য় খুতবা (খুতবায়ে শাকশাকীয়্যাহ বলে খ্যাত) ।

২৯। রওযায়ে কাফী , পৃ. ৫৮-৬৩।

৩০। সাইয়্যেদ হাশিম রাসূলীর অনুবাদকৃত ইরশাদে শেখ মুফীদ , পৃ. ২৭৬ এবং ২৭৮।

৩১। ধর্মের পুনর্জাগরণে ইমামগণের ভূমিকা ” নামক পুস্তকের ৯ম খণ্ডের ৭৮-৮৬ পৃষ্ঠা দ্রষ্টব্য ((ঘটনাটির বিশদ বিবরণ সেখানে এসেছে) ।

৩২। শারহে নাহ্জুল বালাগাহ্ , ইবনে আবিল হাদীদ , ১ম খণ্ড , পৃ. ৬৬-৬৭।

৩৩। ধর্মের পুনর্জাগরণে ইমামগণের ভূমিকা নামক পুস্তকের ২য় খণ্ডে বিশদ ব্যাখ্যা দেখুন।

৩৪। দেখুন : শারহে নাহ্জুল বালাগাহ , ২য় খণ্ড ,পৃ. ১০২) , তাযকিরায়ে খাওয়াসসিল উম্মাহ্ , পৃ. ১১৫ এবং জামহারাতুল খুতাব (২য় খণ্ড , পৃ. ১১২) । মুয়াবিয়ার মূল কবিতাটি আরবী ভাষায় এরূপঃ

ইয়া সাখরু লাতুসলিমান্ ইয়াওমান্ ফাতাফযাহানা বা ’ দাল্লাযীনা বিবাদরি আসবাহ ফিরাক্বা ,

খালী ওয়া আম্মী ওয়া আম্মুল উম্মি ছালিছুহুম ওয়া হানযালুল্ খাইরি ক্বাদ আহ্দা লানাল্ আরাক্বা।

লা তারকানান্না ইলা আমরিন তুকাল্লিফুনা ওয়ার রাক্বিসাতি বিহি ফী মাক্কাতাল্ খুরুক্বা ,

ফালমাওতু আহ্ওয়ানু মিন্ ক্বাওলিল্ উদাতি লাক্বাদ আদা ইবনু হারবিন আনিল্ উয্যা ইযা ফারিক্বা।

৩৫। ইসলাম মুওয়াল্লাফাতি কুলূবিহিম ” এর অংশকে বাহ্যদর্শীদের জন্যে নির্ধারণ করেছে , যারা বাহ্যিকভাবে ইসলাম গ্রহণ করেছেন কিন্তু দ্বীনের যথার্থতা পরিপূর্ণভাবে তাদের অন্তরদেশকে বশীভূত করে নি। এর দ্বারা আল্লাহর বিধান সম্পর্কে তাদের অন্তরসমূহকে নরম ও আকর্ষণ করতে চেয়েছে।

৩৬। আত্তাম্বীহ্ ওয়াল্ আশরাফ , পৃ. ২৮২-২৮৩ , মাক্তাবাতু খাইয়াত প্রকাশনী , বৈরূত , ১৯৬৫।

৩৭। আল ইস্তি ’ আব , ১ম খণ্ড , পৃ. ৪১২ ; উসদুল গাবাহ্ , ৩য় খণ্ড , পৃ. ১০৬ ; তাহযীবু ইবনি আসাকির , ৭ম খণ্ড ,পৃ. ২০৬ ও ২১৪ ; আল্ ইসাবাহ্ , ২য় খণ্ড , পৃ. ২৬০ ; সিয়ারু আ ’ লামিন্ নুবালা , ২য় খণ্ড , পৃ. ১-৫ ; সহীহ্ মুসলিম , ৫ম খণ্ড , পৃ. ৪৬।

৩৮। সহীহ্ মুসলিম , ৫ম খণ্ড , পৃ. ৪৬ ; তাহযিবু ইবনি আসাকির , ৫ম খণ্ড , পৃ. ২১২।

৩৯। তাহযিব , ৭ম খণ্ড , পৃ. ২১১-২১২ ; আন্ নুবালা , ২য় খণ্ড ,পৃ. ৩-৪ ; মুসনাদে আহমাদ , ৫ম খণ্ড ,পৃ. ৩২৫।

৪০। আনসাবুল আশরাফ , বালাযুরী , ৫ম খণ্ড , পৃ. ৫৩।

৪১। আনসাবুল আশরাফ , বালাযুরী , ৫ম খণ্ড , পৃ. ৪৩।

৪২। মুয়াবিয়ার উদ্দেশ্য ছিল এই যে , তার দরবারের মত সাধারণ সভাগুলিতে , মিম্বরের উপর , জুমুআর নামাযের খুৎবাসমূহে উছমানের নামে যেন প্রশংসা করা হয় ; পক্ষান্তরে আলীর (আ.) নামে যেন নিন্দা করা হয় !

৪৩। তাবারী , ৬ষ্ঠ খণ্ড , পৃ. ১৪১ , ৫১ সালের ঘটনাদি ; ইবনু আছীর , ৩য় খণ্ড , পৃ. ১৭৮।

৪৪। আন্ বারেআতিয্ যিম্মাতু মিম্মান রাওয়া শাইআন্ মিন্ ফাযলি আবী তুরাবিন্ ওয়া আহলি বাইতিহী।

৪৫। শারহে নাহ্জুল বালাগাহ্ , ইবনে আবিল হাদীদ , ৩য় খণ্ড , পৃ. ১৫-১৬।

৪৬। ফা আয়্যু আমালিন্ ইয়াব্ক্বা মা ’ আ হাযা ? লা উম্মা লাকা ! লা ওয়াল্লাহি ইল্লা দাফনান্ দাফনান। ” একটি বর্ণনায় এসেছে যে , মুয়াবিয়া এই বাক্যটি উচ্চারণ করেন ওয়া ইন্না ইবনা আবী কাবশাতা লাইউসাহু বিহি ইয়াওমিয়ান খামসা মাররাতিন লা ওয়াল্লাহি ইল্লা দাফনান্ দাফনান। ” মুরূজুয্ যাহাব , ইবনে আছীর , ৭ম খণ্ড ,পৃ. ৪৯ ; শারহে নাহ্জুল বালাগাহ্ , ইবনে আবিল হাদীদ , ১ম খণ্ড ,পৃ. ৪৬৩ ; আল্ মুওয়াফাকিয়্যাত , যুবাইর ইবনে বাক্কার , পৃ. ৫৭৬-৫৭৭ , ইরাক হতে প্রকাশিত।

৪৭। মুরূজুয্ যাহাব , ৩য় খণ্ড ,পৃ. ২৮ ; মুয়াবিয়ার দিনগুলির স্মরণে , মুহাম্মদ মুহিবিদ্দীনের গবেষণাকৃত।

৪৮। দেখুন : ধর্মের পুনর্জাগরণে ইমামগণের ভূমিকা , ৪র্থ খণ্ড , পৃ. ৩৭৬।

৪৯। ধর্মের পুনর্জাগরণে ইমামগণের ভূমিকা , ১ম খণ্ড , পৃ. ৬০ , শেখ সাদুকের ছাওয়াবুল আ ’ মাল হতে বর্ণিত , পৃ. ৩০৯ , হাদীছ নম্বর-৪ এবং বিহারুল আনওয়ার , ৫২তম খণ্ড , পৃ.১৯০।

৫০। তারীখে ইয়াকূবী , ২য় খণ্ড , পৃ. ২৫১-২৫২।

৫১। তারীখে ত্বাবারী , ৭ম খণ্ড , পৃ. ১১ ; ইবনে আছীর , ৩য় খণ্ড , পৃ. ৪৭ ; ইবনে কাছীর , ৮ম খণ্ড , পৃ. ২২০ ; ইয়াকূবী , ৬ষ্ঠ খণ্ড , পৃ. ২৫১।

৫২। তারীখে ইবনে কাছীর , ৮ম খণ্ড , পৃ. ২২।

৫৩। তারীখে ইয়াকূবী , ২য় খণ্ড , পৃ. ২৫১ , তারীখে ইবনে কাছীর , ৮ম খণ্ড ,পৃ. ২২৫।

৫৪। তারীখুল ইসলাম , যাহাবী , ৩য় খণ্ড , পৃ. ১৮-১৯।

৫৫। ইবনে আছাম , খাওয়ারিযিমী ও ইবনে কাছীর বর্ণনা করেছেন যে , ইমাম হোসেন (আ.) এর বিচ্ছিন্ন মাথা দেখে ইয়াযীদ নিম্নোক্ত পংক্তিগুলির (এইগুলি মূলতঃ ইবনে যেবা ’ রার রচিত) মাধ্যমে উদাহরণ প্রদান করে :

১) লাইতা আশ্ইয়াখী বিবাদরিন শাহিদূ জায্ ’ আল্ খাযরাজি মিন্ ওয়াক্ব ’ য়িল্ আসালি ,

২) লা আহাললু ওয়াস্তাহাললু ফারাহা ছুম্মা ক্বালু ইয়া ইয়াযীদু লা তাশাল্লি ;

৩) ক্বাদ ক্বাতালনাল্ ক্বারমা মিন্ সাদাতিহিম্ ওয়া আদলনা মাইলা বাদরিন ফা ’ তাদালা।

ইবনে আছাম বলেন : উপরোক্ত তিনটি পংক্তির পর ইয়াযীদ নিম্নোক্ত পংক্তি নিজে থেকে রচনা করে :

৪) লাস্তু মিন্ উক্ববাতিন্ ইনলাম্ আন্তাক্বিম্ মিন্ বানী আহমাদা মা কানা ফা ’ আলা।

“ তাযকিরাতু খাওয়াসসিল উম্মাহ্ ” এর প্রণেতা বলেন : ঐতিহাসিক সমস্ত বর্ণনায় এই বিষয়টি উল্লেখিত হয়েছে যে , যখন হযরত আবা আব্দিল্লাহ্ আল হুসাইনের বিচ্ছিন্ন মাথাটিকে ইয়াযিদের সম্মুখে রাখা হয় তখন সে সিরিয়ার অধিবাসীদেরকে সমবেত করে এবং তার হস্তস্থিত লাঠি দ্বারা ইমাম হুসাইনের মাথাটিতে আঘাত করছিল ও ইবনু যেবা ’ রার এই পংক্তিগুলি আবৃত্তি করছিল :

লাইতা আশ্ইয়াখী বিবাদরিন শাহিদূ ওয়াক্ব ’ আতাল্ খাযরাজি মিন ওয়াক্ব ’ য়িল্ আসালি ,

ক্বাদ ক্বাতালনাল্ ক্বিরনা মিন্ সাদাতিহিম্ ওয়া আদালনা মাইলা বাদরিন ফা ’ তাদালা।

তাযকিরার প্রণেতা শু ’ বার ” উদ্ধৃতি দিয়ে বলেন যে , উল্লিখিত পংক্তিগুলির পর ইয়াযীদ তার নিম্নোক্ত পংক্তিগুলিকে সংযোজন করে :

লায়িবাত্ হাশিমু বিল্ মুলকি ফালা খাবারুন্ জাআ ওয়া লা ওয়াহ্য়ুন্ নাযালা।

লাস্তু মিন্ খিন্দিফা ইনলাম্ আন্তাক্বিম্ মিন্ বানী আহমাদা মা কানা ফা ’ আলা।

এইখানে কয়েকটি বিষয় তুলে ধরা আবশ্যক :

(ক) ইবনে যেবা ’ রার কবিতাটি অত্যন্ত বিখ্যাত ছিল। ইয়াযীদ সেইগুলির মাধ্যমে উদাহরণ দেয়ার পূর্বেই অনেক বর্ণনাকারী সেইগুলিকে তাদের লেখায় উল্লেখ করেছিল। ইয়াযীদ নিজে থেকে শুধু দ্বিতীয় , চতুর্থ ও পঞ্চম পংক্তি তিনটি সেই পংক্তিগুলির সাথে যোগ করে। অবশ্য পরবর্তী বর্ণনাকারীরা তার নিকট হতে এই পংক্তিগুলি গ্রহণ করেছে এবং প্রকৃতপক্ষে যা কিছু ইবনে যেবা ’ রীর ছিল তার সঙ্গে যুক্ত করেছে , আর এর ফলে বর্ণনাগুলির শব্দের মাঝে পার্থক্য ঘটেছে।

(খ.) সীরাতে ইবনে হিশামে (৩য় খণ্ড ,পৃ. ৯৭) এবং ইবনে আবিল হাদীদের শারহে নাহ্জুল বালাগা ’ য় (২য় খণ্ড ,পৃ. ৩৮২) ইবনে যেবা ’ রীর কবিতার পংক্তিগুলি বর্ণিত হয়েছে। (বিঃ দ্রঃ পরবর্তী পৃ.)

ফুতুহে ইবনে আছাম (৫ম খণ্ড , পৃ. ২৪১) এবং তারীখে ইবনে কাছীরে (৮ম খণ্ড , পৃ. ১৯২) এইভাবে এসেছে যে , ইয়াযীদ দ্বিতীয় পংক্তির পর পুনরায় ইবনে যেবা ’ রার নিম্নোক্ত পংক্তিগুলির মাধ্যমে উদাহরণ দিয়েছে :

হীনা আলকাত্ বিকুবাআ বারাকুহা ওয়াস্তাহারাল্ ক্বাত্লু ফী আব্দিল আশাল্লি।

খাওয়ারিযিমীর মাক্তালে (২য় খণ্ড ,পৃ. ৪৮) প্রথম পংক্তিটির পূর্বে , নিম্নোক্ত দু ’ টি পংক্তি এসেছে:

ইয়া গুরাবাল্ বায়নি মা শিয় ’ তা ফাকুল্ ইন্নামা তান্দুবু আমরান্ ক্বাদ্ ফু ’ য়িল্ ,

কুল্লু মুলুকিন্ ওয়া না ’ য়ীমিন্ যা-য়িল্ ওয়া বানাতুদ্দাহির ইয়াল্ ’ আব্না বিকুল্ল।

আর উপরোক্ত কিতাবে এবং কিতাবুল্ লুহুফেও (পৃ. ৬৯) চতুর্থ পংক্তির পর নিম্নোক্ত পংক্তিটি এসেছে :

লা ’ য়িবাত্ হাশিমু বিল্ মুলকি ফালা খাবারুন্ জাআ ওয়া লা ওয়াহ্য়ুন্ নাযালা।

তারীখে ইবনে কাছীরে (৮ম খণ্ড ,পৃ. ২০৪) চতুর্থ পংক্তিটি বাদ পড়ে গেছে এবং তিনি সেইগুলিকে , ইয়াযীদের শৈশবের পরিচর্যার দায়িত্বে নিয়োজিতা নারী রিয়ার ” উদ্ধৃতি দিয়ে তারীখে ইবনে আসাকির হতে বর্ণনা করেছেন এবং শুধু প্রথম পংক্তিটির উল্লেখ করেই শেষ করেছেন। অনুরূপভাবে আবুল ফারাজ ইসফাহানী মাক্বাতিলুত তলিবিয়ীনে ” (পৃ. ১২০) প্রথম ও তৃতীয় পংক্তি দু ’ টি উল্লেখ করেছেন।

আরও দেখতে পারেনঃ তাবাকাতে ফুহুলুশ্ শু ’ আরা ’ , পৃ. ২০০ ; সামাতুন্ নুজূমিল্ আওয়ালী , ৩য় খণ্ড , পৃ. ১৯৯ এবং আবু আলী ক্বালী ’ র আমালী , ১ম খণ্ড , পৃ. ১৪২।

৫৬। বিহারুল আনওয়ার , ৪৪তম খণ্ড ,পৃ. ৩২৯।

এখানে একটি বিষয় উল্লেখ করা আবশ্যক , সেটি হল এই যে , ফুতুহে ইবনে আ ’ ছাম(৫ম খণ্ড ,পৃ.৩৪) এবং খাওয়ারিযিমীর মাকতালে (১ম খণ্ড , পৃ. ১৮৮) , আসীরু বিসীরাতি জাদ্দী ওয়া আবী ” এই বাক্যটির পর , বিকৃতকারীরা নিম্নের বাক্যটিকে সংযোজন করেছে : ওয়া সীরাতিল্ খুলাফায়ির রাশিদীনাল্ মাহ্দিয়্যীনা রাযিয়াল্লাহু আনহুম্ ” অর্থাৎ এবং খুলাফায়ে রাশিদীনের পথকে পুনরজ্জীবিত করতে। এই বাক্যটি যে , ঠিক নয় তা স্পষ্ট। কারণ , খুলাফায়ে রাশিদীন ” পরিভাষাটি উমাইয়্যাদের খিলাফতের পর আবিষ্কৃত এবং তার পূর্বে কোনো টেক্সটই ব্যবহৃত হয় নি। অপরদিকে খুলাফায়ে রাশিদীন এর অর্থ , যারা রাসূলের (সা.) পর স্থলাভিষিক্ত হিসেবে একের পর এক প্রশাসনিক ক্ষমতার অধিকারী হন এবং তাদের অন্যতম হলেন ইমাম আলী ইবনে আবী তালিব (আ.) । ফলে , ইমাম আলী (আ.) এর কথা স্বতন্ত্রভাবে উল্লেখের পর এবং ’ অব্যয়টি ব্যবহার করে রাশিদীন ’ শব্দটি তার সঙ্গে যুক্ত করা ঠিক নয় এবং এটি তারই নিদর্শন বহন করে যে , এই বাক্যটি , বিকৃতকারীদের মাধ্যমে হযরত আবা আব্দিল্লাহর বাণীর সাথে সংযোজিত হয়েছে।

৫৭। মুছীরুল আহযান , পৃ. ১৪-১৫ ; আল্ লুহুফ ,পৃ. ৯-১০ ; ফুতুহে ইবনে আ ’ ছাম ; মাকতালে খাওয়ারেযমী।

৫৮। মুছীরুল আহযান ,নাজমুদ্দীন মুহাম্মদ ইবনে জা ’ ফর ইবনে আবিল বাকা ’ , পৃ.১৪-১৫ ; হাইদারিয়া ছাপা খানা , নাজাফ , ১৩৬৯ হিঃ ; আল্ লুহুফ ফী কাত্লা আত্তুফুফ , পৃ.৯-১০ , মাকতাবাতুল্ আন্দালুস , বৈরূত ; ফুতূহে ইবনে আ ’ ছিম , ৫ম খণ্ড , পৃ. ১০ ; মাকতালে খাওয়ারিযমী , ১ম খণ্ড ,পৃ. ১৮০-১৮৫।

৫৯। মুসতাদরাক আস্ সাহীহাঈন , ৩য় খণ্ড , পৃ. ১৭৬ ; তারীখে ইবনে আসাকির , হাদীস ৬১৩ ; মাজমা ’ উয্ যাওয়ায়িদ ; মাকতালে খাওয়ারিযিমী , ১ম খণ্ড , পৃ. ১৫৯ ; তারীখে ইবনে কাছীর , ৬ষ্ঠ খণ্ড , পৃ.২৩০ ; ফুসূলুল্ মুহিম্মা , ইবনে সাব্বাগ মালিকী , পৃ. ১৪৫ বিস্তারিত ব্যাখ্যার জন্যে দেখুন: মা ’ আলিমুল্ মাদ্রাসাতাঈন , সায়্যিদ মুরতাযা আসকারী , ৩য় খণ্ড , পৃ. ২৭-২৮ , ২য় সংস্করণ।

৬০। মো ’ জামুত তাবরানী , হাদীস ৫৭ , পৃ. ১২৮ ; মাজমাউয্ যাওয়ায়িদ , ৯ম খণ্ড ,পৃ. ১৯১ ; আনসাবুল্ আশরাফ , বালাযুরী , পৃ. ৩৮ ; তারীখুল ইসলাম , যাহাবী , ৩য় খণ্ড , পৃ.১১ ; সিয়ারুন্ নুবালা , যাহাবী , ৩য় খণ্ড ,পৃ. ১৯৫ ; কানযুল উম্মাল , ১৬ তম খণ্ড , পৃ.২৭৯ ; কামিলুয্ যিয়ারাহ্ ,ইবনে কুলাভেই , পৃ.৭২। আরও বিস্তারিত ব্যাখ্যার জন্যে দেখুন: মা ’ আালিমুল্ মাদ্রাসাতাঈন , ৩য় খণ্ড ,পৃ. ৩৭-৪৩ , ২য় সংস্করণ।

৬১। ইবনে আব্বাসের বক্তব্যটি নিম্নরূপ:

সাদাক্বতা আবা আব্দিল্লাহি ! ক্বালান্নাবিয়্যু (সাঃ) ফী হায়াতিহি : মা লী ওয়া লিইয়িযদা লা বারাকাল্লাহু ফী ইয়াযীদা ওয়া ইন্নাহু ইয়াক্বতুলু ওয়ালাদী ওয়া ওয়ালাদা ইব্নাতী-আল হুসাইনা ওয়াল্লাযী নাফ্সী বিইয়াদিহি লা ইউক্বতালু ওয়ালাদী বাইনা যাহারানী ক্বাওমুন্ ফালা ইয়াম্না ’ ঊনাহু ইল্লা খা-লাফাল্লাহু বাইনা কুলূবিহিম্ ওয়া আলসুনিহিম্ ! ছুম্মা বাকা ’ ইবনু আব্বাসিন ওয়া বাকা ’ মা ‘ আহুল্ হুসাইনু- ফুতুহু ইবনে আ ’ ছাম , ৫ম খণ্ড , পৃ. ২৬ , ১ম সংস্করণ , দারুল কুতুবিল্ ইলমিয়্যাহ্ , বৈরূত।

৬২। মোজামুত তাবরানী , হা.৫১ , পৃ. ১২৪ ; তারীখে ইবনে আসাকির ,হা.৬২২ এবং তাহযিব , ৪র্থ খণ্ড , পৃ.৩২৫(সংক্ষিপ্ত) ;যাখায়িরুল উক্ববা ,পৃ.১৪৭ ; মাজমা ’ উয্ যাওয়ায়িদ , ৯ম খণ্ড , পৃ.১৮৯ ; তারহুত্তাছরিব , হাফেয ইরাকী , ১ম খণ্ড ,পৃ.৪২ ; আল্ মাওয়াহিবুল লাদুন্নিয়্যাহ , ২য় খণ্ড , পৃ. ১৯৫ ; খাসায়িসুল্ কুবরা , সুয়ূতী , ২য় খণ্ড , পৃ.১৫২ ; আস্ সীরাতুস্ সাবিয়্যু , শাইখানী মাদানী , পৃ.৯৩ ; জওহারাতুল্ কামাল ফিল্ আদ্ ’ ইয়্যাহ , পৃ.১২০ ; র্আ রিয়াযুন্নাযারাহ্ , ১ম খণ্ড , পৃ. ৯২-৯৩।

৬৩। বিশদ ব্যাখ্যার জন্য দেখুন : মা ’ আলিমুল্ মাদ্রাসাতাঈন : সায়্যিদ মুরতাযা আসকারী , ৩য় খণ্ড , বাবু আম্বায়ি বিস্তিশহাদিল্ হুসাইনি (আ.) ক্বালবা উকূয়িহি , পৃ. ১৬ ও তৎপরবর্তী অংশ , ২য় সংস্করণ।

৬৪। ফুতুহে ইবনে আ ’ ছাম , ৫ম খণ্ড , পৃ. ৪২-৪৩ ; মুছীরুল আহযান , পৃ. ২৯ ; আল্ লুহুফ , পৃ. ১৩।

৬৫। তারীখে তাবারী ,৬ষ্ঠ খণ্ড , পৃ. ২২৩ ; মো ’ জামু তাবরানীয়ে কাবীর , আবুল কাসিম সুলাইমান ইবনে আহমাদ(জন্ম ৩৬০ হি.) , পৃ.১২৮ , হা.৬১ ; তারীখে ইবনে আসাকির ,হা.৬৪১ ; সিয়ারুন্ নুবালা , ৩য় খণ্ড ,পৃ.১৯৫ ; আরও বিশদভাবে জানতে দেখুন : মা ’ আলিমুল্ মাদ্রাসাতাঈন , ৩য় খণ্ড , পৃ. ১৬।

৬৬। তাবাকাতে ইবনে সা ’ দ , হা.২৮০ ; তারীখে ইবনে আসাকির , হা.৬৬৬।

৬৭। ইরশাদ , শেখ মুফীদ , রাসূলী মাহাল্লাতীর অনুবাদকৃত , ২য় খণ্ড ,পৃ. ৮১।

৬৮। ইরশাদ , শেখ মুফীদ , রাসূলী মাহাল্লাতীর অনুবাদকৃত , ২য় খণ্ড , পৃ. ৮১।

৬৯। তারীখে তাবারী , ৫ম খণ্ড , পৃ.৩৫৩ ; মুহাম্মদ আবুল ফযল ইব্রাহীমের গবেষণাকৃত , ২য় সংস্করণ।

৭০। তারীখে ইবনে আসাকির , হা. ৬৪৯।

৭১। তারীখে তাবারী , ৬ষ্ঠ খণ্ড , পৃ. ২১১।

৭২। আল্ লুহুফ ,পৃ.২৪-২৫ ;ইরশাদ ,মুফীদ ,২য় খণ্ড , পৃ. ৬৯ ; তারীখে তাবারী , ২য় খণ্ড , পৃ.২১৭-২১৮ ; ইবনে আছীর , ৪র্থ খণ্ড , পৃ. ১৭।

৭৩। তারীখে তাবারী , ৬ষ্ঠ খণ্ড পৃ. ৩১৭ ; আনসাবুল্ আশরাফ , পৃ. ১৬৪।

৭৪। আনসাবুল্ আশরাফ , ৩য় খণ্ড , পৃ. ১৬১ ; তারীখে তাবারী , ৭ম খণ্ড , পৃ. ২৭৫ ; কামিলে ইবনে আছীর , ৩য় খণ্ড , পৃ. ২৭৬।

৭৫। আল্ লুহুফ , সায়্যিদ আহমাদ ফেহরী যানজানীর অনুবাদকৃত , পৃ. ২৭।

৭৬। সীরাতে ইবনে হিশাম , ৭ম খণ্ড , পৃ. ৬২৭ ; মোস্তফা আস্ সাক্কা , ইব্রাহীম আল্ আব্ইয়ারী এবং আব্দুল হাফীয আশ্ শালবী সংশোধিত , ২য় সংস্করণ , ১৩৭৫ হি. ।

৭৭। আহলুল বাইতের (আ.) সমীপে(ইমাম হাসান ও ইমাম হুসাইন) , সায়্যিদ মুহ্সিন আমীন , হাসান তারিমীর অনুবাদকৃত , পৃ. ১৪৬।

৭৮। মুছীরুল আহযান , পৃ. ২৯ ; আল্ লুহুফ , সায়্যিদ আহমাদ ফেহরী যানজানী অনুবাদকৃত , পৃ.৬১।

৭৯। কামিলুয্ যিয়ারাহ্ , পৃ.৭৫ , অধ্যায়:৭৫ ; আল্ লুহুফ , সায়্যিদ আহমাদ ফেহরী অনুবাদকৃত , পৃ. ৬৫-৬৬ ; মুছীরুল আহযান , পৃ. ২৭।

৮০। ইরশাদ , শেখ মুফীদ , পৃ. ২৩৬ ; এলামুল্ ওয়ারা , পৃ. ২১৮।

৮১। তাহযিব(আলী আকবর গাফ্ফারীর সংশোধিত) , শেখ তূসী , ৫ম খণ্ড , পৃ. ৪৮১ ; তারীখে ইবনে কাছীর , ৮ম খণ্ড , পৃ. ১৬৬ ; ইরশাদ , শেখ মুফীদ , পৃ. ২০১।

৮২। তারীখে তাবারী , ৬ষ্ঠ খণ্ড , পৃ. ২২৫ ; তারীখে ইবনে আছীর , ৪র্থ খণ্ড , পৃ. ১৭ ; আখবারুত্তুয়াল , দিন্ওয়ারী , পৃ. ২৪৭ ; তারীখে ইবনে কাছীর , ৮ম খণ্ড , পৃ. ১৬৮।

৮৩। ইরশাদ , মুফীদ (রাসূলী মাহাল্লাতীর অনুবাদকৃত) ,২য় খণ্ড , পৃ.৭৭ ; মা ’ আলিমুল্ মাদ্রাসাতাঈন , ৩য় খণ্ড , পৃ.৬৭।

৮৪। দেখুন : মা ’ আলিমুল্ মাদ্রাসাতাঈন , ৩য় খণ্ড , পৃ. ৯৪-১৫৭ , ২য় সংস্করণ।

৮৫। খাওয়ারেযমীর মাকতাল , ২য় খণ্ড , পৃ. ২৬।

৮৬। মাকাতিলুত তালিবিয়্যীন , পৃ. ৮০ ; তারীখে তাবারী , ইউরোপের ছাপা , ২য় খণ্ড , পৃ. ৩৫৬-৩৫৭।

৮৭। মাকাতিলুত তালিবিয়্যীন , পৃ. ৮০ , মুস্ ’ আব যুবাইরী , নাসাবে কুরাইশ , পৃ. ৫৭ , ইসাবাহ্ , ৪র্থ খণ্ড , পৃ. ১৭৮ , আবু মুররার জীবনী অংশ ।

৮৮। নাসাবে কুরাইশ , পৃ. ৫৭।

৮৯। সূরা আলে ইমরান- ৩৩ ,৩৪।

৯০। খাওয়ারেযমীর মাকতাল , ২য় খণ্ড , পৃ. ৩০-৩১।

৯১। খাওয়ারেযমীর মাকতাল , ২য় খণ্ড , পৃ. ৩১।

৯২। তাবারী আব্দুল্লাহ্ ইবনে মুসলিমের শাহাদত বরণকে আলী আকবরের পরে উল্লেখ করেছেন। (তারীখে তাবারী , ২য় খণ্ড , পৃ. ৩৫৭ , ইউরোপ হতে প্রকাশিত) ।

৯৩। নাসাবে কুরাইশ , মুস্ ’ আব যুবাইরী , পৃ. ৪৫ ; মাকাতিলুত তালিবিয়্যীন , পৃ. ৯৪।

৯৪। মানাকিব , ইবনে শাহরে আশুব , ২য় খণ্ড , পৃ. ২২০ ; মাকতালে খাওয়ারিযিমী , ২য় খণ্ড , পৃ. ২৬।

৯৫। আকীলের সন্তানদের ও জা ’ ফরের শাহাদত বরণ এবং তাঁদের বীরত্বগাঁথাগুলোকে খাওয়ারেযমীর মাকতাল এবং ইবনে শাহরে আশুবের মানাকিব হতে আমরা এনেছি। তাবারী তার অভ্যাস অনুযায়ী সেই বীরত্বগাঁথাগুলোকে যুদ্ধের বর্ণনায় আনেন নি।

৯৬। মানাকিব , ইবনু শাহরে আশুব , ২য় খণ্ড , পৃ. ২২০ ; মাকতালে খাওয়ারেযমী , ২য় খণ্ড , পৃ. ২৭। শুধু বীরত্বগাঁথাগুলি ব্যতীত খাওয়ারেযমী ও ইবনে শাহরে আশুবের বর্ণনাগুলির সাথে তাবারীর বর্ণনা সমূহের পুরোপুরি মিল রয়েছে। বীরত্বগাঁথাগুলিকে তাবারী বর্ণনা করেন নি।

৯৭। মানাকিব : ইবনে শাহরে আশুব , ২য় খণ্ড , পৃ. ২২০। কিন্তু খাওয়ারেযমীর মাকতালে (২য় খণ্ড , পৃ. ২৭) এই পংক্তি দু ’ টি কাসিম অথবা আব্দুল্লাহর প্রতি সম্পৃক্ত করা হয়েছে এবং এলামুল্ ওয়ারাতে (২১৩ পৃ.) এসেছে : ইমাম হুসাইন (আ.) নিজ কন্যা সাকীনাকে আব্দুল্লাহ্ ইবনে হাসানের সাথে বিবাহের আকদ করেছিলেন। কিন্তু তাঁর সাথে বিবাহ অনুষ্ঠান সম্পন্ন করার পূর্বেই তিনি শাহাদত বরণ করেন।

৯৮। খাওয়ারেযমীর মাকতাল , ২য় খণ্ড , পৃ ২৭।

৯৯। মানাকিব , ইবনে শাহরে আশুব , ২য় খণ্ড , পৃ. ২২১।

১০০। তাবারী , ২য় খণ্ড , পৃ. ৩৫৮-৩৫৯ ; ইরশাদ , শেখ মুফীদ , পৃ. ২২৩।

১০১। আমরা এই আলোচনার পুরোটিই মাকতালে খাওয়ারেযমী (২য় খণ্ড , পৃ. ২৮-২৯) হতে এনেছি।

১০২। তাবারী ও তার অনুসারীরা , হযরত ইমাম হুসাইনের ভাইদের শাহাদতের সংবাদটি সংক্ষিপ্তভাবে এনেছেন। ইবনে শাহরে আশুবও হযরত আব্বাসের সহোদর ভাইদের বীরত্বগাঁথাগুলিকে বর্ণনা করেছেন। তবে আমরা এইখানে যা বর্ণনা করেছি তা খাওয়ারেযমীর মাকতাল গ্রন্থ হতে নিয়েছি (২য় খণ্ড , পৃ. ২৮-২৯) ।

১০৩। মাকাতিলুত তালিবিয়্যীন , পৃ. ৮৪ ।

১০৪। মাকতালে খাওয়ারেযমী , ২য় খণ্ড , পৃ. ২৯-৩০।

১০৫। ইরশাদ , শেখ মুফীদ , ২য় খণ্ড , পৃ. ২৪ ; এলামুল ওয়ারা , পৃ. ২৪৪ ; মুছীরুল আহযান , পৃ. ৫৩ ; আল্ লুহুফ , পৃ. ৪৫।

১০৬। মানাকিব , ইবনে শাহরে আশুব , ২য় খণ্ড , পৃ. ২২১-২২২।

১০৭। মাকতালে খাওয়ারেযমী , ২য় খণ্ড , পৃ. ৩০।

১০৮। মাকতালে খাওয়ারেযমী , ২য় খণ্ড , পৃ .৩২ , তারীখে ত্বাবারী , তারীখে ইবনে কাছীর , ৮ম খণ্ড , পৃ .১৮৮ ।

১০৯। তারীখে তাবারীতে হুসাইনের পরিবারের একজন শিশু ” বলা হয়েছে , ২য় খণ্ড , পৃ. ৩৬৩ ; সংশোধিত বর্ণনাটি শেখ মুফীদের ইরশাদ গ্রন্থ হতে নেয়া হয়েছে , পৃ. ২২৫।

১১০। তারীখে তাবারী , ৫ম খণ্ড , পৃ. ৪৪৮ , দারুল মা ’ আরিফ প্রকাশনী , মিশর ; মুহাম্মদ আবুল ফযল ইব্রাহীমের গবেষণা , ২য় খণ্ড , পৃ. ৩৫৯- ৩৬০ , ইউরোপ হতে প্রকাশিত।

১১১। তারীখে তাবারী , ২য় খণ্ড , পৃ. ৩৬২-৩৬২ , ইউরোপ হতে ছাপা।

১১২। আলী ইবনিল হুসাইন দ্বারা বর্ণনাকারীর উদ্দেশ্য হচ্ছে ইমাম যয়নুল আবেদীনকে (আঃ) বুঝানো। আর তিনি , আলী আসগর ও শিশু ছিলেন না বরং তাঁকে আলী আওসাত ’ বলা হত এবং সেইদিন কারবালায় তাঁর সন্তান ৫ম ইমাম হযরত ইমাম মুহাম্মদ বাক্বির (আ.)ও উপস্থিত ছিলেন।

১১৩। সুনানে তিরমিযী , ১৩তম খণ্ড , পৃ. ১৯৩-১৯৪ ; মুস্তাদরাকে হাকিম , ৪র্থ খণ্ড , পৃ. ১৯ ; সিয়ারু আ ’ লামিন্ নুবালা ’ , ৩য় খণ্ড , পৃ. ২১৩ ; রিয়াযুন্নাদ্বরা , পৃ. ১৪৮ ; তারীখে ইবনে আছীর , ৩য় খণ্ড , পৃ. ৩৮ ; তারীখে ইবনে কাছীর , ৮ম খণ্ড , পৃ. ২০১ ; তারীখে সুয়ূতী , পৃ. ২০৮ ; তারীখে ইবনে আসাকির , পৃ. ৭২৬ ; তাহযীবে তারীখে ইবনে আসাকির , ৪র্থ খণ্ড , পৃ. ২০৪।

১১৪। তারীখে ইয়াকূবী , ১ম খণ্ড , পৃ. ২৪৭-২৪৮।

১১৫। মুসনাদে আহমাদ , ১ম খণ্ড , পৃ.৪২ ও ২৮২ ; ফাযায়িল , আহমাদ ইবনে হাম্বাল , পৃ.২০ , ২২ ও ২৬ ; মো ’ জামে তাবরানী , ৫৬তম খণ্ড , মুস্তাদরাকে হাকিম , ৪র্থ খণ্ড , পৃ. ৩৯৮ ; তিনি গুরুত্বারোপ করেছেন যে , এই হাদীছটি ইমাম মুসলিমের মানদণ্ড অনুযায়ী সহীহ্। সিয়ারে আ ’ লামীন্ নুবালা ’ , ৩য় খণ্ড , পৃ.৩২৩ ; রিয়াযুন্নাদ্বরা ,পৃ. ১৪৮ ; মাজমা ’ উয্ যাওয়ায়িদ , ৯ম খণ্ড , পৃ. ১৯৩-১৯৪ ; তায্কিরায়ে সিব্তে ইবনে জওযী , পৃ. ১৫২ ; তারীখে ইবনে আছীর , ৩য় খণ্ড , পৃ. ৩৮ ; তারীখে ইবনে কাছীর , ৬ষ্ঠ খণ্ড , পৃ. ২৩১ ও ৮ম খণ্ড , পৃ. ২০০ ; তিনি লিখেন : তার সনদ সুদৃঢ়। তারীখুল খামীস , ২য় খণ্ড , পৃ. ৩০০ ; আল্ ইসাবাহ্ , ১ম খণ্ড , পৃ ৩৩৪ ; তারীখে সুয়ূতী , পৃ. ২০৮ ; আমালিয়ে শাজারী , পৃ. ১৬০।

১১৬। তারীখে ইবনে কাছীর , ৮ম খণ্ড , পৃ. ২০০ ; তারীখে ইবনে আসাকির , হাদীস নং ৭৩৩-৭৩৯ ।

১১৭। তারীখে ইবনে কাছীর , ৮ম খণ্ড , পৃ.২০১ ; সিয়ারু আ ’ লামিন্ নুবালা ’ , ৩য় খণ্ড , পৃ ২১৪ ; তারীখে সুয়ূতী , পৃ. ২৮০ ; তারীখে ইবনে আসাকির , হাদীস নং ৭৩৩-৭৩৯।

১১৮। তাবারী , ২য় খণ্ড , পৃ. ৩৬৮-৩৬৯ ; ইউরোপ হতে প্রকাশিত।

১১৯। তাবারী , ২য় খণ্ড , পৃ. ৩৭০ ; ইউরোপ হতে প্রকাশিত।

১২০। মুছীরুল আহযান , পৃ. ৬৬-৬৯ ; আল্ লুহুফ ; মানাকিব , ইবনে শাহরে আশুব।

১২১। কুল্ লা আস্আলুকুম্ আলাইহি আজরান্ ইল্লাল্ মাওয়াদ্দাতা ফিল্ কুরবা। ” সূরা শুরা:২৩।

১২২। ওয়া আতি যাল্ কুরবা হাক্কাহু। ” সূরা বনী ইসরাঈল:২৬।

১২৩। ওয়া ’ লামূ আন্নামা গানিমতুম্ মিন্ শাইয়িন্ ফাইন্না লিল্লাহি খুমুসাহু ওয়া লিররাসূলি ওয়ালি যিল্ কুরবা। ” সূরা আনফাল:৪১।

১২৪। ইন্নামা ইউরীদুল্লাহু লিইউয্হিবা আনকুমুর রিজসা আহলাল বাইতি ওয়া ইউত্বাহহিরাকুম তাত্বহীরা। ” সূরা আহযাব:৩৩।

১২৫। তারীখে ইবনে আ ’ ছাম , ৫ম খণ্ড , পৃ. ২৪২-২৪৩ ; তাফসীরে তাবারী , সংশ্লিষ্ট আয়াতের ব্যাখ্যা ; তাফসীরে ইবনে কাছীর , ৪র্থ খণ্ড , পৃ. ১১২ ; মাকতালে খাওয়ারেযমী , ২য় খণ্ড , পৃ. ৬১ ; আল্ লুহুফ , সায়্যিদ আহমাদ ফেহরী ’ র অনুবাদকৃত , পৃ. ১৭৬-১৭৮ ; আমালী , শাইখ সাদূক , পৃ. ১৬৬ , ৩য় সংস্করণ।

১২৬। তাযকিরাতু খাওয়াসসিল্ উম্মাহ্ , পৃ. ১৪৯ ; মুছীরুল আহযান , পৃ. ৭৯ ; আল্ লুহুফের অনুবাদ , পৃ. ১৭৮।

১২৭। মুছীরুল আহযান , পৃ. ৭৮ ; আল্ লুহুফের অনুবাদ , পৃ. ১৭৮।

১২৮। ফুতূহে ইবনে আ ’ ছাম , ৫ম খণ্ড , পৃ. ২৪৬।

১২৯।.শেখ মুফীদের ইরশাদের অনুবাদ , ২য় খণ্ড , পৃ. ১২৫-১২৬ ; তারীখে তাবারী , ৬ষ্ঠ খণ্ড ,পৃ. ২৬৫।

১৩০। আবু বারযা আল আসলামী , তাঁর নাম উবাইদ , তাঁর পিতার নাম হারিছ এবং ৬৪ হিজরী সালে তিনি মারা যান। উসদুল গাবাহ্ , ৬ষ্ঠ খণ্ড , পৃ. ৩১ , দারুশ শে ’ ব প্রকাশনী।

১৩১। তারীখে তাবারী , মুহাম্মদ আবুল ফযল ইব্রাহীমের গবেষণালব্ধ , মিসর থেকে প্রকাশিত , ৫ম খণ্ড , পৃ. ৪৬৫ ; ৬১ হিজরীর ঘটনাসমূহের অন্তর্গত।

১৩২। এই পংক্তিগুলির আরবি মূল অংশটি ও প্রমাণপঞ্জি পূর্বে উল্লেখ হয়েছে।

১৩৩। মুছীরুল আহযান , পৃ. ৮০ ; আল্ লুহুফের অনুবাদ , পৃ. ১৮১-১৮৬।

১৩৪। সূরা ইসরা:১।

১৩৫। ফুতূহে ইবনে আ ’ ছাম , ৫ম খণ্ড , পৃ. ২৪৭-২৪৯ ; মাকতালে খাওয়ারেযমী , ২য় খণ্ড , পৃ. ৬৯-৭১।

১৩৬। তারীখুল ইসলাম , আয্ যাহাবী , ২য় খণ্ড , পৃ. ৩৫৬।

১৩৭। আগানী , আবুল ফারাজ ইস্ফাহানী , ১ম খণ্ড , পৃ. ৩৪-৩৫।

১৩৮। তারীখে তাবারী , ৭ম খণ্ড , পৃ.৭ ; ইবনু আছীর , ৪র্থ খণ্ড , পৃ. ৪৫।

১৩৯। আত্তাম্বীহ্ ওয়াল্ আশ্রাফ , পৃ. ২৬৩ ; মুরূজুয্ যাহাব , ৩য় খণ্ড , পৃ. ৬৮- ৬৯ ; আখবারুত্তোয়াল , পৃ. ২৬৫। ইবনে যুবাইরের প্রতি ইয়াযীদের মূল বক্তব্য নিম্নরূপ ছিল :

উদ্ ’ ঊ ইলাহাকা ফিস্ সামায়ি ফাইন্নানী আদ্ ’ ঊ আলাইকা রিজালা আক্কি ওয়া আশ্ ’ আরি

কাইফা আন্নাজাতু আবা হাবীবিন্ মিনহুম্ ফাহ্তাল্ লিনাফসিকা ক্বালবা আতাল্ আস্কারি।

১৪০। তারীখে তাবারী , ৭ম খণ্ড , পৃ.১১ , ইবনে আছীর , ৩য় খণ্ড , পৃ. ৪৭ ; ইবনে কাছীর , ৮ম খণ্ড , পৃ.২২০।

১৪১। তারীখে ইবনে কাছীর , ৬ষ্ঠ খণ্ড , পৃ. ২৩৪।

১৪২। ইবনে কাছীর , ৮ম খণ্ড , পৃ. ২২।

১৪৩। তারীখে তাবারী , ৭ম খণ্ড , পৃ. ১৩।

১৪৪। আত্তাম্বীহ্ ওয়াল্ আশ্রাফ , পৃ. ২৬৪ ; মুরূজুয্ যাহাব , ৩য় খণ্ড , পৃ.৭১।

১৪৫। তারীখে তাবারী , ৭ম খণ্ড , পৃ. ১৪ ; ইবনে আছীর , ৩য় খণ্ড , পৃ. ৪৯ ; ইবনে কাছীর , ৮ম খণ্ড , পৃ.২২৫।

১৪৬। মুরূজুয্ যাহাব , ৩য় খণ্ড , পৃ. ৭২-৭৩।

১৪৭। মুরূজুয্ যাহাব , ৩য় খণ্ড , পৃ. ৭২-৭৩।

ইবনু নুমাইরিন্ বিশামা তাওয়াল্লা ক্বাদ আহরাক্বাল্ মাক্বামা ওয়াল্ মুসাল্লা।

১৪৮। তারীখে ইয়াকূবী , ২য় খণ্ড , পৃ. ২৫১-২৫২।

১৪৯। তারীখুল খামীস , ২য় খণ্ড , পৃ. ৩০৩ ; তারীখুল খুলাফা , সুয়ূতী , পৃ. ৯।

১৫০। বিস্তারিত দেখুন : তারীখে ত্বাবারী ; ইবনে আছীর ও ইবনে কাছীরের ৬৫-৬৭ হিজরীর ঘটনাবলীর বর্ণনায়।

১৫১। তারীখে ইয়াকূবী , ২য় খণ্ড , পৃ.৩৪৫ এবং ৩৫২-৩৫৩ ; ইবনে আছীর , ৫ম খণ্ড , পৃ. ১৪৪ ও ১৪৮ , ১৩০ হিজরীর ঘটনাবলীর বর্ণনার মাঝে ; মুরুজুয্ যাহাব , ৩য় খণ্ড , পৃ.২৮৬।

১৫২। আক্বদুল ফারীদ , মুহাম্মদ সা ’ য়ীদুল আরবান , ৫ম খণ্ড , পৃ. ২৮৫-২৮৬ ; মিসর হতে প্রকাশিত , ১৩৭২।

১৫৩। আনসাবুল আশরাফ , ৫ম খণ্ড , পৃ. ৩৭৪ , বাগদাদ হতে প্রকাশিত।

১৫৪। তারীখে ইয়াকূবী , ২য় খণ্ড , পৃ. ২৬১ , দারে সাদেও প্রকাশনী , বৈরূত।

১৫৫। সূরা বাক্বারাহ্ : ২৫৫।

১৫৬। তাফসীরে তাবারী , ৩য় খণ্ড , পৃ. ৮ ; তাফসীরে ইবনে কাছীর , ১ম খণ্ড , পৃ. ৩১০ ; তাফসীরে সুয়ূতী , ১ম খণ্ড , পৃ. ৩২৮-৩২৯ ; তাওহীদে ইবনে খুযাইমা , ১০১।

১৫৭। তাওহীদে সাদুক , বাবু মা ’ না ক্বাওলিল্লাহি আয্যা ওয়া জাল্লা ওয়াসিয়া কুরসিয়্যুহুস্ সামাওয়াতি ওয়াল্ আরয ” , পৃ. ৩২৭-৩২৮।

১৫৮। আমালী , শেখ তূসী , ২য় খণ্ড , পৃ. ৫৬ , নাজাফ হতে ছাপা , আন্ নোমান ছাপাখানা ; বাসায়িরুদ্দারাজাত , পৃ ১৬৭ ; ইয়ানাবী ’ উল মাওয়াদ্দাহ্ , পৃ ২০।

১৫৯। সীরাতে ইবনে হিশাম , ২য় খণ্ড , পৃ. ৪০-৪২।

১৬০। সীরাতে ইবনে হিশাম , ২য় খণ্ড , পৃ. ৪৭-৫৬।

১৬১। ইম্তা ’ উল্ আসমা , মুক্বরীযী , পৃঃ ২৭৪-২৯১।

১৬২। মাক্বাতিলুত্তালিবিয়্যীনের অনুবাদ , আলী আকবার গাফ্ফারী কর্তৃক সংশোধিত , পৃ. ১৯৭-১৯৯ ; শেখ মুফীদের ইরশাদের অনুবাদ , ২য় খণ্ড , পৃ. ১৮৪-১৮৭।

১৬৩। তারীখে ত্বাবারী , ৭ম খণ্ড , পৃ. ৩০০ ; কামিলে ইবনে আছীর , ৩য় খণ্ড , পৃ. ২৮০ ; মাকতালে খাওয়ারেযমী , ১ম খণ্ড , পৃ. ২৩৪ ; আনসাবুল আশরাফ , ৩য় খণ্ড , পৃ. ১৭১।

১৬৪। আল্ লুহুফের অনুবাদ , পৃ. ৬৫। অবশ্য কামিলুয্ যিয়ারা ’ য় এসেছে যে , পত্রখানার শিরোনাম ছিল : হুসাইন ইবনে আলী তরফ হতে হাশিম গোত্রের মুহাম্মদ ইবনে আলী এবং তাঁর সমর্থকদের প্রতি ।

১৬৫। তারীখে ত্বাবারী , ৭ম খণ্ড , পৃ. ৩২১-৩৩২।

১৬৬। আনসাবুল আশরাফ , পৃঃ ১৬৭ ও ১৬৮ ; তারীখে ইবনে আছীর , ৪র্থ খণ্ড , পৃ. ১৭।

১৬৭। তারীখে তাবারী , ৬ষ্ঠ খণ্ড , পৃ. ২২৪-২২৫ ; শাইখ মুফীদের ইরশাদের অনুবাদ , ২য় খণ্ড , পৃ. ৭৩-৭৫ ; তাবারীর বর্ণনা থেকে উদ্ধৃত করা হয়েছে।

১৬৮। তারীখে তাবারী , ৭ম খণ্ড , পৃ. ২৯৭-২৯৮ ; কামিলে ইবনে আছীর , ৩য় খণ্ড , পৃ. ২৮০ ; ইরশাদ , শেখ মুফীদ , পৃ. ২২৪-২২৫ ; মাকতালে খাওয়ারেযমী ,পৃ. ২৩১-২৩২।

১৬৯। তারীখে তাবারী , ৭ম খণ্ড , পৃ. ২৯৭-২৯৮ ; কামিলে ইবনে আছীর , ৩য় খণ্ড , পৃ. ২৮০ ; ইরশাদ , শেখ মুফীদ , পৃ. ২২৪ ও ২২৫ ; মাকতালে খাওয়ারেযমী , পৃ. ২৩১-২৩২।

১৭০। রওযায়ে কাফী , আলী আকবর গাফ্ফারী সংশোধিত , পৃ. ৫৮-৬৩।

১৭১। রওযায়ে কাফী , আলী আকবর গাফ্ফারীর সংশোধিত , পৃ. ৫৮-৬৩।

১৭২। এই ইজতিহাদগুলির দলীল এবং তার নমুনাগুলির সাথে পরিচিতির জন্যে , দেখুন : মা ’ আলিমুল্ মাদ্রাসাতাঈন , ২য় খণ্ড , পৃ. ৭২-২৯৯ , চতুর্থ সংস্করণ ; ইজতিহাদ দার মুকাবিলে নাস , আব্দুল হুসাইন শারাফুদ্দীন ।

১৭৩।দ্রষ্টব্য:মা ’ আলিমুল মাদরাসাতাইন , ৩য় খণ্ড , পৃ. ৩০১ এর পর হতে এবং ২য় খণ্ড।