আল হাসানাইন (আ.)

প্রবন্ধ

ধর্ম এবং মাযহাব
জ্ঞান অর্জনের দায়িত্ব-কর্তব্য (২য় অংশ)

জ্ঞান অর্জনের দায়িত্ব-কর্তব্য (২য় অংশ)

অন্যান্য আবশ্যিক দায়িত্ব এবং ব্যক্তিগত ও সামাজিক ইসলামী দায়িত্ব পালন নির্ভর করে জ্ঞান অর্জনের ওপর। জ্ঞান অর্জন অন্যান্য আবশ্যিক দায়িত্ব ও ইসলামী বিষয় সম্পাদন করার চাবিকাঠি হিসাবে পরিচিত-ইসলামী আইনশাস্ত্রে যাকে ‘প্রাথমিক বাধ্যবাধকতা’ বলা হয়েছে। সুতরাং যদি মুসলমানদের অবস্থার উন্নতি হয় এবং বিজ্ঞান থেকে তারা আরও অধিক লাভবান হয় তাহলে জ্ঞান অর্জন আরও গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠবে এবং এর ক্ষেত্র আরও বিস্তৃত করবে।

ধর্ম এবং মাযহাব
জ্ঞান অর্জনের দায়িত্ব-কর্তব্য (১ম অংশ)

জ্ঞান অর্জনের দায়িত্ব-কর্তব্য (১ম অংশ)

জ্ঞান অর্জন প্রত্যেক মুসলমানের জন্য বাধ্যতামূলক এবং কোন একটি বিশেষ শ্রেণী বা উপশ্রেণীর জন্য তা নির্দিষ্ট নয়। ইসলামের পূর্ববর্তী সভ্যতাসমূহে জ্ঞান অর্জন কেবল একটি নির্দিষ্ট শ্রেণীর অধিকারের ব্যাপার ছিল। কিন্তু ইসলামে জ্ঞান অর্জন একটি বাধ্যতামূলক (ফরয) কাজ এবং নামায আদায় করা, রোযা রাখা, যাকাত প্রদান করা, হজ্বে যাওয়া, জিহাদে অংশগ্রহণ করা এবং সৎকাজের আদেশ ও অসৎকাজে নিষেধের মতো জ্ঞান অর্জন করাও প্রত্যেকের ওপর আবশ্যিক দায়িত্ব।

কোরআনের তাফসীর
সূরা আত তাওবা; (২২তম পর্ব)

সূরা আত তাওবা; (২২তম পর্ব)

মুনাফিক এবং অসৎ মানুষের সংস্পর্শ থেকে দূরে থাকা উচিত। তাদের সাথে সম্পর্ক না রাখাই উত্তম কাজ। কারণ মুনাফিকী এবং কপটতা সংক্রামক ব্যাধির মত।

কোরআনের তাফসীর
সূরা আত তাওবা; (২১তম পর্ব)

সূরা আত তাওবা; (২১তম পর্ব)

ইসলামের নির্দেশ মানুষের শক্তি ও সামর্থের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ। সামর্থের বাইরে কোন নির্দেশ ইসলাম মানুষের ওপর চাপিয়ে দেয় না। যদি কোন কাজ কারো পক্ষে আঞ্জাম দেয়া আসলেই অসম্ভব হয়। তাহলে ইসলামী আইন তাকে সে কাজ থেকে অব্যাহতি দেয়।  

নৈতিকতা ও মূল্যবোধ
আখলাক বা চরিত্র (কর্তব্য ও অধিকার পরিচিতি)

আখলাক বা চরিত্র (কর্তব্য ও অধিকার পরিচিতি)

সৌভাগ্য অর্জনের একমাত্র পন্থা হিসেবে গণ্য কর্তব্য সমূহ ও করনীয় কাজগুলোর মূল্য ও তাৎপর্য, স্বয়ং মানবতারই মূল্য ও তাৎপর্য হিসেবে গণ্য। ফলে, এ কর্তব্য সমূহ সম্পাদনের মাধ্যমে মানবতার প্রকৃত আকাঙ্খাগুলো পূরণ হয়ে থাকে। আর এগুলোই মানব জীবনকে সুন্দর ও তৃপ্তিময় করে তোলে এবং তাদের সামনে সৌভাগ্যের দ্বার উন্মুক্ত করে দেয়।

ধর্ম এবং মাযহাব
গীবত একটি মারাত্মক ব্যাধি

গীবত একটি মারাত্মক ব্যাধি

জিহ্বার দ্বারা যে সব কঠিন পাপ কাজ সংঘটিত হয় তার অন্যতম হল গীবত। গীবত একটি মারাত্মক ব্যাধি। গীবত করার ফলে মানুষের অন্তর অন্ধকারাচ্ছন্ন হয়ে যায় এবং ধীরে ধীরে তা আল্লাহর ক্ষমা থেকে মানুষকে বঞ্চিত করার কারণ হয়ে দাঁড়ায়। অন্যের ছিদ্রান্বেষণ ও গীবত বর্তমানে আমাদের অনেকেরই অভ্যাসে পরিণত হয়েছে আমরা এর কুফল বেমালুম ভুলে গেছি। বড় ও ছোট কেউই এ দোষ থেকে মুক্ত নয়।

কোরআনের তাফসীর
সূরা আত তাওবা; (১৯তম পর্ব)

সূরা আত তাওবা; (১৯তম পর্ব)

ইসলামী বিধান এবং ঈমানদার মুসলমানদের নিয়ে বিদ্রুপ বা উপহাস করা অত্যন্ত জঘন্য পাপ, যা বিদ্রুপকারীকে কুফরিতে নিমজ্জিত করে। ফলে এ ধরনের পাপাচারী সৎপথে ফিরে আসার যোগ্যতা হারিয়ে ফেলে। এই আয়াতে এটাই বুঝানো হয়েছে যে, আল্লাহ ও তার নবী-রাসূলরা ক্ষমার ব্যাপারে কোনো কার্পণ্য করেন না। কিন্তু কিছু মানুষ এতবেশি অন্যায় ও পাপে লিপ্ত হয় যে তারা ক্ষমা লাভের যোগ্যতা হারিয়ে ফেলে।

কোরআনের তাফসীর
সূরা আত তাওবা; (২০তম পর্ব)

সূরা আত তাওবা; (২০তম পর্ব)

সন্তান-সন্ততি ও ধন-সম্পদের প্রাচুর্য সব সময় সবার জন্য কল্যাণ ও প্রশান্তি বয়ে আনে না। এসব অনেকের জন্য অশান্তি ও ঝামেলার কারণ হয়ে দাঁড়ায়। কাজেই কারো বাহ্যিক প্রতিপত্তি দেখে হীনমন্যতায় ভোগা উচিত নয়। কারণ মানসিক ও পারিবারিক প্রশান্তিই মানুষের বড় সফলতা। সম্পদের আধিক্য সব সময় এই প্রশান্তি বয়ে আনতে পারে না।

নৈতিকতা ও মূল্যবোধ
কোরআন মজীদে মানব চরিত্রের নেতিবাচক দিকের উদ্ঘাটন

কোরআন মজীদে মানব চরিত্রের নেতিবাচক দিকের উদ্ঘাটন

কোরআন মজীদ সকল জ্ঞানের আধার। আয়তনের বিচারে কোরআন মজীদ কোনো বিশাল গ্রন্থ নয়; নিজস্ব বিশেষ বাচনভঙ্গির সহায়তায় এতে সংক্ষিপ্ত পরিসরে সমস্ত জ্ঞান নিহিত রাখা হয়েছে। ফলে সাধারণভাবে আমরা যখন কোরআন পাঠ করি তখন এর অনেক জ্ঞানই আমাদের নযরে আসে না। কিন্তু এর জ্ঞানভাণ্ডারের সাথে পরিচিত হবার উদ্দশ্যে অনুসন্ধিৎসা সহকারে বার বার অধ্যয়ন করলে এ থেকে নিত্য নতুন এমন সব জ্ঞানসম্পদ বেরিয়ে আসে যা যে কাউকে বিস্ময়ে হতবাক করার জন্য যথেষ্ট।

ইবাদত-বন্দেগী
দুই নামাজ একসাথে পড়ার শরয়ী দললি

দুই নামাজ একসাথে পড়ার শরয়ী দললি

এ প্রবন্ধে আমরা পবিত্র কোরআন, রাসূল (সা.) এবং মাসুম ইমামগণ (আ.) থেকে বর্ণিত প্রসিদ্ধ রেওয়ায়েতের আলোকে সম্পূর্ণ নিরপেক্ষ দৃষ্টিভঙ্গিতে দু’টি নামায এক সাথে আদায় প্রসঙ্গে তথ্য-সমৃদ্ধ আলাচনা ও পর্যালোচনা করব :  

আপনার মতামত

মন্তব্য নেই
*
*

আল হাসানাইন (আ.)