আল হাসানাইন (আ.)

প্রবন্ধ

কোরআনের তাফসীর
সূরা আত তাওবা;(২৯তম পর্ব)

সূরা আত তাওবা;(২৯তম পর্ব)

আল্লাহর ওপর গভীর বিশ্বাস ও আস্থা শক্তিশালী শক্রর বিরুদ্ধে বিজয়কে সহজ করে দেয়। ইসলামের ইতিহাসকে এর বাস্তব দৃষ্টান্ত হিসেবে উল্লেখ করা যায়। কাজেই সংখ্যায় অবিশ্বাসীদের আধিক্যের কারণে ইসলামের সত্যতার ব্যাপারে সংযমী হওয়া কিংবা হতাশ হয়ে পড়া উচিত নয়; এটা ঈমানদারদের বৈশিষ্ট্য নয়।  

কোরআনের তাফসীর
সূরা আত তাওবা;(২৮তম পর্ব)

সূরা আত তাওবা;(২৮তম পর্ব)

যিনি আল্লাহর বিধান পালনের ব্যাপারে যত্নবান তিনিই প্রকৃত ঈমানদার। তাকওয়া ও পরহেজগারী হচ্ছে ঈমানদারদের ভূষণ। তবে ইসলামের শক্রদের ব্যাপারে ঈমানদারদের মনোভাব অত্যন্ত দৃঢ়। এ ব্যাপারে তারা আপোষহীন ও অবিচল।  

ইসলামী ব্যাক্তিত্ব
রাসূল (সা.) এর ভালবাসা, আবু তালিবের ঈমানেরই স্বাক্ষ্য স্বরূপ

রাসূল (সা.) এর ভালবাসা, আবু তালিবের ঈমানেরই স্বাক্ষ্য স্বরূপ

হযরত আবু তালিবের প্রতি রাসূল (সা.)-এর গভীর ভালবাসাসহ বিভিন্ন সময়ে চাচার প্রতি তাঁর ব্যতিক্রমধর্মী প্রশংসা ও সম্মান প্রদর্শনের আলোকে বলা যায়, মহান আল্লাহর রাসূলের অকৃত্রিম শ্রদ্ধা ও ভালোবাসাই প্রমান করে যে, হযরত আবু তালিব সন্দেহাতীত ভাবে খাটি ঈমানদার ছিলেন।    

ইসলামী ব্যাক্তিত্ব
হযরত আবু তালিব (রাঃ) সম্পর্কিত কিছু তথ্য

হযরত আবু তালিব (রাঃ) সম্পর্কিত কিছু তথ্য

হযরত আবু তালিব তাঁর আশি বছরের জীবনের এক মুহূর্তের জন্যও মুর্তি পূজায় অংশ নেননি। কিংবা তুচ্ছতম কোন মন্দ বা গর্হিত কাজের প্রতি তাঁর মৌন সমর্থন বা অংশগ্রহণ এর একটি উদাহরণ কেউ পেশ করতে পারবে না। বরং তাঁর জীবনেতিহাস হচ্ছে মানব কল্যাণে আত্মনিবেদিত এক মহান ব্যক্তিত্ব। মহানবী (সাঃ) আবির্ভূত হওয়ার পূর্বেও তিনি ছিলেন তৌহিদবাদের বিশ্বাসী একজন খাঁটি মু’মিন মুসলমান এবং পিতা আব্দুল মুত্তালিব এর মৃত্যুর পর তিনি খানায়ে কা’বার মুতাওয়াল্লী বা তত্ত্বাবধায়ক মনোনিত হন।    

নবুয়্যত
নবী রাসূল প্রেরণের প্রয়োজনীয়তা

নবী রাসূল প্রেরণের প্রয়োজনীয়তা

নবীরা হচ্ছেন ঐশী শিক্ষক যাঁরা মানব জাতিকে শিক্ষা দেয়ার জন্য প্রেরিত হয়েছেন। যেমনিভাবে একটি শিশু প্রাথমিক বিদ্যালয়,মাধ্যমিক ও উচ্চ-মাধ্যমিক বিদ্যালয়,কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষা অর্জন করার সময় প্রাথমিক বিদ্যালয়,মাধ্যমিক ও উচ্চ-মাধ্যমিক স্কুলশিক্ষক,প্রভাষক ও অধ্যাপকদের কাছে বিভিন্ন বিষয় শিক্ষা লাভ ও জ্ঞানার্জন করে ঠিক তেমনি মানব জাতি নবীদের আদর্শিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বিভিন্ন বিষয় সম্পর্কে জ্ঞানার্জন করে এবং মহান নবীদের শিক্ষামালার সমান্তরালে তাদের নৈতিক চরিত্র এবং সামাজিক আচরণাদিও পূর্ণতাপ্রাপ্ত হয়ে থাকে।  

হযরত মোহাম্মদ (সা.)
সত্যের প্রথম প্রকাশ

সত্যের প্রথম প্রকাশ

ইসলামের প্রকৃত ইতিহাসের শুভ সূচনা ঐ দিন থেকে হয়েছিল যে দিন মহানবী (সা.) রিসালাত ও নবুওয়াতের দায়িত্ব লাভ করেন। এর ফলে অনেক স্মরণীয় ঘটনার উদ্ভব হয়। যে দিন মহানবী মানব জাতির হেদায়েতের দায়িত্বপ্রাপ্ত হলেন  ওহীর ফেরেশতার মাধ্যমে

হযরত মোহাম্মদ (সা.)
মহানবী (সা.) এর নবুওয়াতের অভিষেক দিবস

মহানবী (সা.) এর নবুওয়াতের অভিষেক দিবস

মহান আল্লাহর পক্ষ থেকে একজন ফেরেশতা সৌভাগ্য ও হেদায়েতের গ্রন্থের (আল কোরআন) প্রারম্ভক ও শুভ সূচনা হিসাবে কিছু আয়াত মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.)-এর কাছে পাঠ করেন। আর এ কয়েকটি আয়াত অবতীর্ণ হওয়ার মধ্য দিয়ে হযরত মুহাম্মদ (সা.) নবুওয়াতের মর্যাদাপূর্ণ স্থানে অধিষ্ঠিত হলেন (এ ঘটনার মধ্য দিয়ে হযরত মুহাম্মদ (সা.)-এর নবুওয়াত আনুষ্ঠানিকভাবে মহান আল্লাহর পক্ষ থেকে ঘোষণা করা হয়)। ঐ ফেরেশতা ছিলেন হযরত জিবরাইল (আ.)। আর ঐ দিনটি ছিল মহানবী (সা.)-এর নবুওয়াতের অভিষেক (মাবআ’স) দিবস। আজকের এই পবিত্র দিনে সবাইকে জানাই আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিন্দন ।

কোরআনের তাফসীর
সূরা আত তাওবা; (২৭তম পর্ব)

সূরা আত তাওবা; (২৭তম পর্ব)

একজন ঈমানদারকে অবশ্যই কাজে-কর্মে সত ও নিষ্ঠাবান হতে হবে। শুধু মুখে বললেই ঈমান অর্জিত হয় না। অন্তরে বিশ্বাস, মৌখিক ঘোষণা এবং কার্যে তা পরিণত করাকে ঈমান বলা হয়।

ইসলামী বিশ্বাস
লাইলাতুল মিরাজ

লাইলাতুল মিরাজ

বিশ্বমানবতার মুক্তিদূত মহানবী হযরত মুহাম্মদ মোস্তফা (স.) নবুওয়াত প্রাপ্তির পর তাঁর মক্কী জীবনের শেষ দিকে, মতান্তরে হিজরতের তিন বছর আগে রজব মাসের ২৭ তারিখের রাতে তিনি জাগ্রত অবস্থায় সশরীরে বোরাক নাম বাহনযোগে মক্কা মুকাররমা থেকে বায়তুল মুকাদ্দাস এবং সেখান থেকে রফরফ যোগে ঊর্ধ্বালোকে পরিভ্রমণের মাধ্যমে সৃষ্টির অনন্ত রহস্য অবলোকন এবং আল্লাহপাকের পরম সান্নিধ্য অর্জন করেন। এর পর বায়তুল মুকাদ্দাস ফিরে এসে সব নবী-রাসূলের ইমাম হয়ে নামাজ আদায় করে মক্কায় ফিরে আসেন।

ইতিহাস বিষয়ক
বন্দিনী হযরত যয়নবের বক্তব্য

বন্দিনী হযরত যয়নবের বক্তব্য

ইমাম হুসাইন (আ.) তার বাহাত্তর জন সঙ্গীসাথীসহ ক্ষুধার্ত ও তৃষ্ণার্ত অবস্থায় কারবালার মরুপ্রান্তরে শহীদ হন । শাহাদতের একদিন পর ইমাম ও তাঁর সাথিদের পবিত্র মৃতদেহগুলি, গাযেরিয়ার অধিবাসী বনী আসাদ গোত্রের লোকদের দ্বারা সমাহিত হয়।

আপনার মতামত

মন্তব্য নেই
*
*

আল হাসানাইন (আ.)